আম্পান থেকে গবাদিপশু রক্ষায় প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরে কন্ট্রোলরুম

69

ঘূর্ণিঝড় আম্পান থেকে গবাদিপশুকে রক্ষা করতে কন্ট্রোল রুম চালু করেছে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়। গবাদিপশুকে আশ্রয় কেন্দ্রে নেয়া, প্রয়োজনীয় চিকিৎসার ব্যবস্থা করা, গবাদিপশুর জন্য খাদ্য সহায়তা প্রদানসহ উদ্ভূত সমস্যা সমাধানে কাজ করবে এই কন্ট্রোল রুম।

এছাড়া ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’ পরবর্তীতে গবাদিপশুর চিকিৎসা, ভ্যাকসিনেশন, খাদ্য সহায়তা প্রদানসহ অন্যান্য কার্যক্রম কন্ট্রোল রুমের মাধ্যমে সমন্বয়েরও নির্দেশ দিয়েছে মন্ত্রণালয়। ইতোমধ্যে কন্ট্রোল রুমের মাধ্যমে উপকূলীয় জেলাসমূহে ৭ হাজার গবাদিপশুকে আশ্রয়কেন্দ্রে নেয়া হয়েছে এবং এ কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

মঙ্গলবার (১৯ মে) মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিমের নির্দেশে জরুরি ভিত্তিতে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরে কেন্দ্রীয়ভাবে (টেলিফোন নম্বর-০২ ৯১২২৫৫৭) এবং ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’ সংশ্লিষ্ট বিভাগে ও উপকূলীয় ১৯টি জেলার প্রাণিসম্পদ দপ্তরে সার্বক্ষণিক এ কন্ট্রোল রুম চালু করা হয়।

কন্ট্রোল রুম চালু করা জেলাগুলোর মধ্যে রয়েছে খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, পটুয়াখালী, বরগুনা, ভোলা, পিরোজপুর, বরিশাল, ঝালকাঠি. নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, ফরিদপুর, মাদারীপুর, গোপালগঞ্জ এবং শরীয়তপুর।

সংশ্লিষ্ট জেলামূহের মৎস্য দপ্তরেও কন্ট্রোল রুম চালু করে মৎস্যচাষী ও মৎস্যজীবীদের প্রয়োজনীয় সহযোগিতা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছে মন্ত্রণালয়। ঢাকায় কেন্দ্রীয়ভাবে কন্ট্রোল রুমের দায়িত্বে থাকবেন প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের চার কর্মকর্তা।

সূত্র: কৃষি প্রতিদিন

ফার্মসএন্ডফার্মার/২০মে২০