আম গাছে সার ব্যবহারের সুষম মাত্রা

37

অনেকেই আছেন যারা আম গাছে কি পরিমাণে সার দিতে হবে সে বিষয়ে ধারণা নেই। অনুমান ভিত্তিক সার ব্যবহার করে থাকেন। এতে গাছের পুষ্টির ঘাটতি যেমন থেকে যায় উপরন্ত ভাল ফলন আশা করা যায় না। তাই জেনে নেওয়া যাক আম গাছে সার ব্যবহারের সুষম মাত্রা।

জৈব ও অজৈব সার গাছের জন্য কতটুকু প্রয়োগ করতে হবে তা নির্ভর করে গাছেরবয়স, আকার, শারীরবৃত্তীয় অবস্থা, পরিবেশ এবং সর্বোপরি মাটির ধরন ও উর্বরাশক্তির উপর। সাধারণত চারা রোপনের পর নতুন পাতা বের হওয়ার পর গাছ প্রতি ৫কেজি জৈব সার, ৪০-৬০ গ্রাম মিউরেট অব পটাশ এবং ৮০ গ্রাম ইউরিয়া প্রয়োগ করতেহবে। পরবর্তীতে গাছের বয়স বাড়ার সাথে সাথে প্রয়োগকৃত সার নিম্নে উল্লেখিত পরিমাণে বৃদ্ধি করা উচিত।

বিভিন্ন বয়সের আম গাছে সারের প্রয়োগ মাত্রা

গাছের বয়স (বছর) গাছ প্রতি সারের পরিমাণ
পচা গোবর (কেজি) ইউরিয়া (গ্রাম) টি.এস.পি (গ্রাম) এম. পি (গ্রাম) জিপসাম (গ্রাম) দস্তা (গ্রাম) রোরন (গ্রাম)
২ ১২ ৬৫০ ৬২০ ২৬০ ৯০ ২৫ ১০
৩ ১৬ ৭৫৫ ৮২৫ ২৯০ ১২০ ২০ ১৫
৪ ২০ ৮৬০ ৯৫০ ৩৯০ ১৫০ ৩০ ১৫
৫ ২৫ ৯০০ ১০৪০ ৪৫০ ১৮০ ৪০ ২০
৬-৮ ৫০ ১২৫৫ ১২৬০ ৭৫০ ২২০ ৫০ ২৫
৯-১১ ৬০ ১৫৫০ ১৫৭৫ ১১০০ ২৫০ ৫০ ২৫
১২এবং তদুর্ধ ৮০ ৮৫০ ১৮৭৫ ১৩০০ ৩০০ ৬০ ৩০

উল্লিখিত সারগুলি দুই কিস্তিতে, প্রথমবার শতকরা ৭৫ ভাগ সেপ্টেম্বর- অক্টোবরএবং দ্বিতীয়বার শতকরা ২৫ ভাগ এপ্রিল-মে মাসে প্রয়োগ করতে হবে। গাছের গোড়ারচতুর্পাশের মাটি কোদাল দিয়ে সামান্য কুপিয়ে অতঃপর সার ছিটিয়ে ভালভাবেমাটির সাথে মিশিয়ে দিতে হবে। সায়ন উৎপাদনের জন্য ডিসেম্বর /জানুয়ারি মাসেসার প্রয়োগ করতে হবে। বিশেষ করে ইউরিয়া প্রয়োগ করলে বেশি পরিমাণে সায়নপাওয়া যাবে।

ফার্মসএন্ডফার্মার/ ১৪ জুলাই ২০২১