চলনবিলে মাছ ধরার বাউত উৎসব

58

পাবনার চাটমোহরসহ চলনবিল অঞ্চলে চলছে মাছ ধরার উৎসব। উপজেলার রামের বিল, খলিশাগাড়ি, ডিকশি, বিলকুড়ালিয়া, গুমানী ও চিকনাই নদী, ভাঙ্গুড়ার রহুলসহ বিভিন্ন বিলে এ উৎসব চলছে। আঞ্চলিক ভাষায় এটিকে বলা হয় ‘বাউত উৎসব’।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বিভিন্ন উপজেলার শত শত মানুষ ভোর থেকেই মাছ ধরার হরেক রকম উপকরণ নিয়ে হাজির হন। হই হই রই রই করতে করতে নেমে পড়েন বিলের শীতল পানিতে। শৌখিন মৎস্যশিকারিদের হাতে থাকে পলো। এ ছাড়া জাল দিয়েও মাছ ধরা হয়।

শিশু থেকে বৃদ্ধ পর্যন্ত মাছ ধরার উৎসবে যোগ দেন। গত শনিবার সকাল থেকে ভাঙ্গুড়ার রহুল ও চাটমোহরের খলিশাগাড়ি বিলে নামে বাউত। শত শত মানুষ নেমেছেন মাছ ধরতে। ডিকশি ও বিলকুড়ালিয়াতেও বাউত নেমেছে। দুই সপ্তাহ এ উৎসব চলবে বলে জানান মৎস্যশিকারিরা।
বড়াইগ্রামের জোনাইল এলাকার মৎস্যশিকারি আমের আলী জানান, এ উৎসবে বোয়াল, শোল, রুই, কাতলসহ হরেকরকম দেশি প্রজাতির মাছ পাওয়া যায়। প্রতি বছরই চলনবিল অঞ্চলের নদী ও বিলে অগ্রহায়ণ-পৌষ মাসে বাউত নামে।

চাটমোহরের বড়শালিখা গ্রাম থেকে পলো দিয়ে মাছ শিকারে আসেন আবদুল গফুর। তিনি জানান, মাছ ধরা তাঁর দীর্ঘদিনের শখ। তাই শত ব্যস্ততার মধ্যেও বাউত উৎসবে আসেন। তবে আগের তুলনায় মাছ কমেছে।