চাষ পুকুরে প্রাকৃতিক খাদ্য সৃষ্টি না হওয়ার কিছু কারণ ও প্রতিকার

47

১.যে সমস্ত পুকুরে ঝিনুক বা শামুক এর পরিমাণ বেশি সে সমস্ত পুকুরে সহজে প্ল্যাঙ্কটন সৃষ্টি করা যায় না। কারণ এরা পুকুরের পানি ফিল্টার করে প্ল্যাংকটন কনা খেয়ে পেলে। তাই পুকুরের পানি সবসময় পরিষ্কার ও হালকা নীল রং এর দেখায়। এই সমস্ত পুকুরে প্ল্যাঙ্কটন সৃষ্টি করার জন্য সারেরর পরিমাণ বেশি দিতে হবে এবং তা ৩ দিন অন্তর অন্তর সূর্যের আলোতে প্রয়োগ করতে হবে, প্রাকৃতি খাদ্য সৃষ্টি না হওয়া পর্যন্ত। প্রয়োগের আগে আরেকটি প্ল্যাঙ্কটন যুক্ত পুকুর থেকে বীজ হিসেবে ১০ – ১২ বালটি পানি সার প্রয়োগের পুকুরে দিতে হবে। নতুন করে পুকুর প্রস্তুতির সময় অবশ্যই ঝিনুক বা শামুক পুকুর থেকে সরাতে হবে। চাষ কালিনী সময় ব্লাক কার্প ছাড়তে পারেন।

২. পুকুরের মাটি এসিটিক হলে তার প্রভাবে পানির pH কম থাকে। আর এই কম pH এর এসিটিক প্রভাব জনিত কারণে প্ল্যাঙ্কটন সৃষ্টি হতে পারে না। পুকুর প্রস্তুত কালীন মাটির pH এর উপর বিত্তি করে চুন ও জৈব সার মাটিতে প্রয়োগ করে চাষ দিতে হবে। এসিড মাটি ঠিক করার জন্য Lab – Guard প্রোবায়োটিক প্রয়োগে ভাল ফল পাবেন।

৩. এঁটেল মাটি হলে পুকুরের পানি প্রায় ঘোলা থাকে ঘোলা পানিতে সূর্যের আলো প্রবেশ করতে পারে না। তাই সহজে ঐ সমস্ত পুকুরে প্রাকৃতিক খাদ্য সৃষ্টি হয় না। পুকুর প্রস্তুতিতে মাটিতে জৈব সার প্রয়োগ করা হলে, পুকুরের পানি ঘোলা হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে।
৪. পুকুরে সূর্যের আলো না পড়লে, প্ল্যাঙ্কটন সৃষ্টি হতে পারে না। পুকুর নির্মাণ এর সময় দিনের বেশি ভাগ সময় রোদ পাওয়া যায় এই রকম স্থান নির্বাচন করতে হবে। পুকুর পাড়ের গাছের ঢাল কাটতে পারেন।

৫. পুকুরের পানিতে কার্বনেট এর ঘনত্ব কম হলে প্ল্যাঙ্কটন সৃষ্টিতে বাধা পায়। পুকুরে ক্যালসিয়াম কার্বনেট চুন প্রয়োগ করলে সমস্যার সমধান হয়।

যোগাযোগ: এই বিষয়ে বিস্তারিত জানতে আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

ফার্মসএন্ডফার্মার/১৪নভেম্বর২০২০