জেনে নিন, ভেন্নার তেলের যতগুণ ও উপকারিতা রয়েছে

1012

বিন্দিয়া এক্সক্লুসিভ বিউটি কেয়ারের রূপবিশেষজ্ঞ শারমিন কচি জানালেন, রূপচর্চার নানা ক্ষেত্রেই ক্যাস্টর তেলের ব্যবহার রয়েছে। শুধু চুল কিংবা ভ্রু গজানোর জন্যই নয়, ত্বকের সুস্থতায় এই তেল বেশ উপকারী। তবে এটি সরাসরি ব্যবহার করা যাবে না।

ক্যাস্টর অয়েলের যত গুণ

চুল পড়া কমাতে সাহায্য করে। নতুন চুল গজাতেও কার্যকর। চুলের আগা ফাটা রোধ করে।
ভ্রু পড়ে যাওয়া বন্ধ হতে বেশ উপকারী ক্যাস্টর তেল। নতুন ভ্রু এবং পাপড়ি গজাতেও সাহায্য করে।
ত্বকের বলিরেখা কমাতে কাজে দেবে ক্যাস্টর তেল। গোড়ালি ফেটে যাওয়া রোধেও কার্যকর।

চিকিৎসকের দৃষ্টিতে
ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের চর্মরোগ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক তুষার সিকদার জানালেন, নতুন করে চুল গজাতে ক্যাস্টর তেল ব্যবহার করা যেতে পারে। তবে এটি প্রতিদিন ব্যবহার করা ঠিক নয়।

ক্যাস্টর তেল ব্যবহারের নিয়ম

চুলে

নারকেল তেলের সঙ্গে ক্যাস্টর তেল মিশিয়ে মাথার ত্বকে লাগাতে পারেন। শারমিন কচি জানালেন ক্যাস্টর তেল যতটা নেবেন, নারকেল তেল নিতে হবে তার দ্বিগুণ পরিমাণ। আধা চামচ ক্যাস্টর তেলের সঙ্গে এক চামচ নারকেল তেল মেশাতে হবে। মিশ্রণটি একটু গরম করে তুলার সাহায্যে চুলের গোড়ায় লাগিয়ে নিন। রাতে এ মিশ্রণ লাগিয়ে সকালে শ্যাম্পু করে ফেলুন। সপ্তাহে দুই দিন এই মিশ্রণ ব্যবহার করতে পারেন।

ভ্রু আর পাপড়িতে

দুই ফোঁটা ক্যাস্টর তেলের সঙ্গে তিন-চার ফোঁটা জলপাই তেল মিশিয়ে চোখের পাপড়ি ও ভ্রুতে লাগাতে পারেন। এ মিশ্রণ সকালে লাগিয়ে দুপুরে গোসলের সময় ধুয়ে ফেলুন। চাইলে দুপুরে গোসলের পর লাগিয়ে সন্ধ্যা বা রাতের দিকে মুখ পরিষ্কার করার সময় মিশ্রণটি ধুয়ে ফেলুন। ধোয়ার সময় কুসুম গরম পানি ব্যবহার করুন। এতে করে ধোয়ার সময় অসুবিধা কম হবে। এক দিন পরপর এভাবে ক্যাস্টর তেল লাগানো যায়।

ত্বকে

সমপরিমাণ ক্যাস্টর তেল ও মধুর সঙ্গে দ্বিগুণ পরিমাণ জলপাই তেল মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করুন। এক চামচের চার ভাগের এক ভাগ পরিমাণ ক্যাস্টর তেলের সঙ্গে মধুও নিন একই পরিমাণে। এর সঙ্গে মেশান আধা চামচ জলপাই তেল। তিনটি উপকরণ মিশিয়ে ফেসপ্যাক তৈরি করে সপ্তাহে দুই দিন ত্বকে ব্যবহার করতে পারেন। সন্ধ্যায় লাগিয়ে ঘণ্টা চারেক পর ধুয়ে ফেলুন।

পায়ের গোড়ালিতে

শুষ্ক মৌসুমে পা ফেটে যাওয়ার সমস্যা হয় অনেকেরই। এ ক্ষেত্রে গোড়ালিতে সরাসরি ক্যাস্টর তেল লাগিয়ে মোজা পরে দেখতে পারেন। শোয়ার সময় এভাবে ক্যাস্টর তেল লাগানো ভালো। সকালে কুসুম গরম পানি দিয়ে গোড়ালি পরিষ্কার করে ফেলুন। এক দিন পরপর এভাবে ক্যাস্টর তেল ব্যবহার করলে ধীরে ধীরে শুষ্কতা কমে আসবে।

আরও কিছু ভেন্নার তেলের উপকারী গুন সমূহ

কাচা ভেন্না সবজি হিসাবে খাওয়া যায়( পরিপক্ক বীজ এবং ফল খাওয়া উচিত নয়)
চুল পরা রোধ করতে
চুলকে ঘন করতে
চোখের আইব্রো কে ঘন এবং কালো করতে
ত্বক কে মোলায়েম করতে ব্যবহার করতে ভেন্নার তেল
স্কিন থেকে ময়লা দূর করতে
ডার্ক সার্কেল থেকে মুক্তি পেতে ব্যবহার করুন ভেন্নার তেল
শুস্ক ত্বক কে মোলায়েম করে
ত্বকের বর্নবিলোপ দূর করে
বলিরেখা দূর করে
ত্বকের কালো দাগ দূর করে
মাথার স্ক্যাল্প কে সুস্থতা দান করে

চুলের কন্ডিশন করতে
গোলাকৃমির চিকিৎসার জন্যে এই তেল উপকারী
কাটা ঘায়ে জীবানুমুক্ত করতে
ব্যাক পেইন কে দূর করতে
শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা কে শক্তিশালী করে
জয়েন্ট পেইন কে ধ্বংস করে
ফুড এডিটিভস হিসাবে ব্যবহৃত হয়
ফুডের ফ্লেভার করতে ভেন্নার তেলের বিভিন্ন রেসিপি আছে
ফাংগাস প্রতিরোধে করে ফলে মোল্ড প্রতিরোধ করে
বীজ সংরক্ষণ করতে এর জুড়ি মেলা ভার
ফুড প্যাকেজিং করতে ভেন্নার তেল ব্যবহৃত হয়
আধুনিক ফার্মা কোম্পানী তে বিভিন্ন মেডিসিন বানাতে ভেন্নার তেল একটি গুরত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।

যেমন – এন্টি ফাংগাল(মাইকোনাজোল) আলাসার চিকিৎসায়,ত্বকের ক্যান্সার প্রতিরোধ, প্যাক্লিক্যাক উপাদানসহ আরও অন্যান মেডিসিনের প্রিকারসর হিসাবে ব্যবহৃত হয়।

ঠোঁট ফাটা রোধ করতে
পা ফাটা রোধা করে
নখের অসুস্থতা য় ব্যবহৃত হয় ভেন্নার তেল
বায়োফুয়েল হিসাবে ভেন্নার তেল সাশ্রয়ী।
এয়ারক্র্যাফট এর জ্বালানি হিসাবে ব্যবহৃত হয়।
লুব্রিকেশন এর কাজে উত্তম লুব্রিকেন্ট হিসাবে ব্যবহৃত হয়
খাদ্য সামগ্রী কোটিং করতে ব্যবহৃত হয় ভেন্নার তেল
ক্যাস্টর ওয়াক্স বানাতে ক্যাস্টর ওয়েল
এই তেলে রয়েছে ভিটামিন ই, মিনারেল, প্রোটিন এবং অন্যান্য পুস্টি উপাদান
আইল্যাশ ঘন করতে এই তেল ব্যবহৃত হয়
গর্ভাবস্থার দাগ দূর করতে ব্যবহৃত হয়
চোখের ছানি পড়া দূর করতে ব্যবহৃত হয়
ফোড়া সারাতে এই তেল দারুন কার্যকরী

গায়ের আচিল দূর করতে এই তেলের অসাধারন গুন রয়েছে
নাকডাক বন্ধের চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয় এই তেল
পেট ফাপা দূর করতে এই তেল বেশ উপকারী
তারুণ্য ফিরে পেতে ক্যাস্টর অয়েল দারুন
হেপাটাইটিস এর চিকিৎসা য় ব্যবহৃত হয়
কন্ঠের কর্কশ ভাব দূর করতে এই তেল ব্যবহৃত হয়।
এলার্জির চিকিৎসার উপাদান হিসাবে ব্যবহার হয়
ত্বকে পুষ্টি যোগাতে এই তেলের তুলন নেই
মালিশের কাজে ব্যবহৃত হয়
ভেন্নার খইল অর্গানিক সার হিসাবে ব্যবহৃত হয়।
( ব্যবহার করার ক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞ মতামত কে প্রাধান্য দিতে হবে এবং ব্যবহার করার ক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞ মতামত গ্রহণ করতে হবে।)

ফার্মসএন্ডফার্মার/০৯এপ্রিল২০