টবে ঢেঁড়স চাষ পদ্ধতি

45

শহরে ছাদ কৃষির জনপ্রিয়তা দিন দিন বেড়েই চলেছে। তারই ধারাবাহিকতায় আজ আমরা আলোচনা করব টবে ঢেঁড়স চাষ পদ্ধতি নিয়ে। সবাই মনোযোগ দিয়ে পড়ুন এবং শেয়ার করে দিন অন্য ছাদ বাগান প্রেমী বন্ধুদের কাছে।

বারোমাসি সবজিগুলোর মধ্যে ঢেঁড়স অন্যতম। ঢেঁড়স সবজি হিসাবে অনেক সুস্বাদু।তাই টবে কিভাবে ঢেঁড়স চাষ করতে হয় তা আজ আমরা জানব।

মাটি তৈরিঃ
দোআঁশ অথবা বেলে দোআঁশ মাটি ভাল। চারা লাগানোর সময় খেয়াল রাখতে হবে যেন মাটি উর্বর ও ঝুরঝুরে হয়।

জাত বাছাইঃ
পুশা শাওনী, কাবুলী ডোয়ার্ফ, লক্ষৌ ডোয়ার্ফ, লং গ্রীন, লং হোয়াইট, পেন্টাগ্রীণ এগুলো অনেক ভাল চাষযোগ্য জাত।

রোপনের সময়ঃ
শীতকালের শেষ থেকে বৈশাখ মাসের প্রথম পর্যন্ত ঢেঁড়স এর বীজ লাগানো উত্তম।

বীজ বপনঃ
প্রথমে বীজকে ২৪ ঘন্টা পানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে। তারপর নির্বাচিত টবের প্রতিটিতে ৩ থেকে ৪ টি করে বীজ বুনে দিতে হবে। কিছু দিন পর চারা বের হলে সবল ও শক্তিশালী একটি চারা রেখে বাকি চারা উপড়ে ফেলতে হবে।

পরিচর্যাঃ
খেয়াল রাখতে হবে গাছের গোড়ায় যেন আগাছা না জন্মায়। আগাছা জন্মালে তা উঠিয়ে ফেলতে হবে। দেখতে হবে পানি শুকিয়ে গেলে টবের মাটিতে যেন ফেটে না যায়।গাছের গোড়ায় দাঁড়ানো পানি তাড়াতাড়ি সরিয়ে দিতে হবে।

সার প্রয়োগঃ
মাটিতে বিভিন্ন ধরণের জৈব সার মিশিয়ে মাটিকে ঝুরঝুরা করে নিতে হবে। এছাড়াও মাটিতে টিএসপি সার ও সরিষার খৈল মেশানো যেতে পারে।

রোগ ও কীটপতঙ্গ দমনঃ
গাছে সাধারণত শুঁয়া পোকার আক্রমণ হয়ে থাকে। এটি গাছের কচি কাণ্ড ছিদ্র করে গাছের ক্ষতি করে। এছাড়াও মোজাইক নামের আর একধরণের ভাইরাস প্রায়ই এই গাছে দেখা যায়। তাই ঢেঁড়স গাছে নিয়মিত কীটনাশক স্প্রে করতে হবে।

ফার্মসএন্ডফার্মার/২৩অক্টোবর২০