বৈরী আবহাওয়া ও আলুর লেট ব্লাইট রোগ

65

সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে পোষ্ট টি শেয়ার করি,আমাদের কেউ না কেউ কৃষি কাজের সাথে জড়িত, এই সামান্য তথ্যে যদি তাদের কাছে পৌঁছাতে পারি তাহলে তারা উপকৃত হবে,এই দেশ এগিয়ে যাবে।
#আলুর_লেইট_নাবী_ধ্ববসা_রোগঃ

Late_blight_রোগের_কারণ (Alternaria Solani/Phytophthora Infestations) নামক ছত্রাক জীবাণু।

রোগ_বিস্তারের_অনুকূল_আবহাওয়াঃ
আর্দ্র (৯১-১০০% আপেক্ষিক আর্দ্রতা) ও ঠাণ্ডা (১০০-২০০ সেঃ) রাত্রিতে ছত্রাক খুব দ্রুত বৃদ্ধি পায় এবং স্পোর উৎপন্ন করে। রোগ সংক্রমনের পর রোগ বৃদ্ধির জন্য ২১-২৪ ডিগ্রী সেলসিয়াস তাপমাত্রার প্রয়োজন হয়। আলুর মৌসুমে নিম্নলিখিত ৪ টি অবস্থার সমন্বয় ঘটে তাহলে রোগ মহামারী রূপে দেখা দেয়।
ক) রাত্রিতে কমপক্ষে ৪ ঘণ্টা ডিউপয়েন্টের (Dew point) নীচে তাপমাত্রা থাকতে হবে।
খ) রাত্রিতে ১০ ডিগ্রী সেঃ উহার কিছু বেশী তাপমারা থাকতে হবে।
গ) পরবর্তী দিনে আকাশ মেঘাচ্ছন্ন থাকতে হবে।
ঘ) ইহার পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় কমপক্ষে ৩.১ মি.মি. বৃষ্টিপাত হতে হবে।
উপরোক্ত অবস্থার উপর নির্ভর করে অনেক স্থানে রোগ দ্রুতই বাতাসে এই রোগের স্পোর/জীবাণু ছড়িয়ে পরে।

লক্ষণ
★প্রথমিক অবস্থায় পাতার উপর ফ্যাকাশে ফিকে সবুজ /বাদামী /কালো রংয়ের গোলাকার অথবা এলোমেলো দাগ দেখা যাবে।
★দাগ গুলো পাতার কিনারা থেকে ভেতরের দিকে খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে।
★পাতা ও কান্ডে বাদামী /কালো পানি ভেজা রং ধারণ করে।
★রোগের শেষ অবস্থায় সমস্ত পাতা মুড়াইয়া আসে এবং শুকিয়ে যায়।
★পাতার নীচের দিকে অসংখ্য পাউডার এর মত রোগের স্পোর দেখা যায়।
★আক্রমণ শুরু হওয়ার ৩/৪ দিনে সমস্ত ক্ষেতে ছড়িয়ে পরে!

#প্রতিকার:
#রোগমুক্ত বীজ রোপণ করা
#আক্রান্ত গাছ দেখা মাত্রই তুলে পুড়িয়ে ফেলা সাথে ঐ স্থানের মাটি তুলে আনা।
#জমিতে সেচ দেওয়া বন্ধ করা।
#ম্যানকোজেব+মেটালেকক্সিল গ্রুপের ছত্রাক নাশক স্প্রে করা।
বা
#কার্বোন্ডাজিম গ্রুপের যে কোন ছত্রাক নাশক,প্রতি লিটার পানিতে ২ গ্রাম হারে মিশিয়ে ৭ দিন পর পর স্প্রে করা।

ফার্মসএন্ডফার্মার/১৯জানুয়ারি২০২১