মাছের গোলাকার হলদে ফুটকি রোগের লক্ষণ ও প্রতিকার

75

পুকুরে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বুদবুদ দেখা যায়। প্রায়ই মাছের কিছু পোনা মৃত অবস্থায় ভেসে উঠছে। এসব মাছের গায়ে গোলাকার গুটি গুটি দাগ। পড়ে গেলে চিন্তায়! আসুন জেনে নিই মাছের এ গোলাকার হলদে ফুটকি রোগের লক্ষণ ও প্রতিকার।

রোগের কারণ ও লক্ষণ : ট্রাইকোডিনা নামক এককোষী পরজীবী দ্বারা এ রোগ হয়। বড় মাছের চেয়ে পোনা মাছের ক্ষেত্রে এ রোগ বেশি হয়। মাছের শ্বাস-প্রশ্বাসের হার বাড়ে। ফুলকায় গোলাকার হলদে সিস্ট বা ফুটকি দেখা যায়। চামড়ায় বালু কণার মতো ফুটকি দেখা যায়। মাছ শক্ত জিনিসে ঘা ঘষে। ফুলকার রক্তক্ষরণ স্থান ফুলে যায়। খাদ্য গ্রহণে অনীহা হয়। আক্রান্ত মাছ দ্রুত মারা যায়।

প্রতিরোধ ও প্রতিকার : পুকুরে প্রতি শতাংশে ২ কেজি হারে চুন প্রয়োগ করা। মাছের ঘনত্ব কমাতে হবে। জৈবসার প্রয়োগ বন্ধ রাখতে হবে। আক্রান্ত মাছ ৫০ পিপিএম ফরমালিনে ২৪ ঘণ্টা বা ২৫০ পিপিএম ফরমালিনে ৩-৫ মিনিট ডুবিয়ে রেখে পরিষ্কার পানিতে ছেড়ে দিতে হবে অথবা আক্রান্ত মাছকে ২০০ পিপিএম সাধারণ লবণ দ্রবণে সপ্তাহে ১ বার ২৪ ঘণ্টা গোসল করাতে হবে।

মাছের গোলাকার হলদে ফুটকি রোগের লক্ষণ ও প্রতিকার শিরোনামে লেখাটির লেখক বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পদকপ্রাপ্ত কৃষি প্রাবন্ধিক কৃষিবিদ ফরহাদ আহাম্মেদ সহকারী অধ্যাপক, কৃষিশিক্ষা, শহীদ জিয়া মহিলা কলেজ, ভূঞাপুর, টাঙ্গাইল।

ফার্মসএন্ডফার্মার/ ০৫ মে ২০২১