যেসব কারণে মুরগির ফার্মে রোগ হয়

46

ফার্মে বিভিন্ন সমস্যা থাকার কারণে বিভিন্ন রোগ ব্যাধি হচ্ছে যার কারণে ভাল প্রডাকশন হচ্ছে না।তাছাড়া কাংক্ষিত ওজন পাচ্ছে না।

১।বিভিন্ন বয়সের মুরগি এক সাথে পালা হচ্ছে যার কারণে রোগ গুলো ফার্ম থেকে শেষ হচ্ছে না,বড় গুলো থেকে ছোট মুরগিতে যাচ্ছে।বড় গুলো সুস্থ মনে হলেও আসলে এগুলো জীবানূ বহন করতেছে এবং রোগ ছড়াচ্ছে।

২। ব্রলারের অধিকানংশ সেডের ফ্লোর টা পাকা না।যার কারণে জীবাণুমুক্ত করণ সম্বব হচ্ছে না।কাচা হলে উপর থেকে১/৪ ইঞ্চি মাটি তুলে ফেলে দিতে হবে।

৩।খাবার ও পানির পাত্র পরিস্কার করে রোদে শুকাতে হবে,পর্দা,ওয়াল,বাল্ব,ব্রুডার পরিস্কার করতে হবে।

পরিস্কারের নিয়ম গুলো মানা হচ্ছে না।

৪।৫০০ ফিটের মধ্যে ফার্ম থাকলে এক সাথে মুরগি তুলতে হবে এবং একই নিয়মে সব করতে হবে সম্বব হলে।কিন্তু বাস্তবে তা হচ্ছে না।

৫. ব্রয়লার ১৫দিন গ্যাপ দিয়ে তুলতে হয় ।কোন কারণে রানিক্ষেত,আমাশয়,এ আই,গাম্বোরু,আই বি,মেরেক্স,টাইফয়েড হলে ২-৩ মাস গ্যাপ দিয়ে মুরগি তুলতে হবে। পূর্বের ব্যবহৃত লিটার ব্যব হার না করাই ভাল।যদি আগের ব্যাচে রোগ হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই লিটার বাদ দিতে হবে।

৬।লিটার ভাল রাখতে হবে,১ম ১০-১৫দিন তূষ দিতে হবে।

৭।পর্দা সিস্টেম ঠিক করতে হবে,পর্দা নিচ থেকে উপরে তুলার সিস্টেম করতে হবে।

ভিতরে গ্যাস করা যাবে না।

৮।ভাল কোম্পানীর বাচ্চা ও খাবার দিতে হবে

৯।ব্রুডিং টা ভাল করতে হবে.১ম ৩দিন ২-৩ ঘন্টা পর পর ফার্মে যেতে হবে কারণ বাচ্চার অবস্থা,তাপের অবস্থা,পর্দার অবস্থা,লিটারের অবস্থা সব সময় যাতে ঠিক থাকে.৪-৭দিন ৩-৪ ঘন্টা পর পর ফার্মে যেতে হবে।যদি সম্বব সব সময় থাকতে পারলো।যত বেশি সময় দিবে তত ভাল হবে।

১০।ফার্ম টির অবস্থান,উচ্চতা,লোকেশন ঠিক থাকতে হবে।

ফার্মসএন্ডফার্মার/ ১৪ জানুয়ারি ২০২২