লাভজনক ব্রয়লার মুরগি পালনে যে বিষয় গুলি জানা দরকার

114

প্রায়শই একটি কথা খামারীদের মাঝে লক্ষ্য করা যায় যে, ব্রয়লার মুরগি পালন করে লস হয়েছে। আর এজন্য অধিকাংশ খামারী সামগ্রকিকভাবে বাজার ব্যাবস্থাকে দায়ী করে থাকেন। কিন্তু শুধুমাত্র বাজার নয়; আরো আনেকগুলি হিসেব থাকে, যেগুলি ঠিকমতো না জানলে লাভজনক ব্রয়লার পালন সম্ভব নয়।

লাভজনক ভাবে ব্রয়লার মুরগি পালন করতে হলে আপনাকে কয়েকটি বিষয়ের হিসেব জানতে হবে। যেগুলিকে ‘পারফরম্যান্স প্যারামিটার‘ বলে। যার মধ্যে রয়েছে, PEF, FCR, CV ইত্যাদি। ব্রয়লার পালনে যেসকল পারফরম্যান্স প্যারামিটার গুলি বিবেচনায় রাখতে হয়, সেগুলি সহজভাবে বর্ননা করা হলো।

এফ সি আর (FCR) বা Food Conversion Ratio :
অনেক সময় আপনি এফ-সি-আর এর কথা শুনে থাকবেন। লাভজনক ব্রয়লার পালনে FCR অত্যন্ত গুরূত্বপূর্ন। সঠিক FCR না হলে খামারী লসের মুখে পড়েন। এজন্য FCR হিসেব করা জানতে হয়। কিন্তু আসলে FCR কি, বা কেন লাগে বা কিভাবে এটি নির্নয় করা হয়? নিচে FCR নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

আসলে FCR হচ্ছে কতটুকু খাদ্য খেয়ে কতটুকু ওজন আসলো, এটার পরিমান নির্নয় করা। FCR নির্নয় করতে হয় নিন্মোক্ত সূত্রানুযায়ী।

FCR
উধাহরন স্বরুপ, ধরুন ১০ টি মুরগির ওজন ৩১,৪৮০ গ্রাম এবং এরা মোট খাদ্য খেয়েছে ৩৬,৮০৭ গ্রাম। তাহলে সূত্র অনুযায়ী আপনার মুরগির FCR হচ্ছে,

FCR = ৩১৪৮০/৩৬৮০৭ = ১.১৬৯

এখন প্রশ্ন হচ্ছে এই FCR রেজাল্ট দ্বারা কি দেখা হয়? এখানে কম FCR মানে হচ্ছে, কম খাদ্য খেয়ে আপনার মুরগির বেশি ওজন আসছে। অর্থাৎ, কম FCR আপনার ব্যাবসার জন্য লাভজনক। যত কম এফ সি আর হবে, তত সেই মুরগি বা এর জাত এবং খাদ্যের মান তত বেশি ভালো।

এটি হচ্ছে একটি সরল সাধারন হিসেব। কিন্তু আসলেই কি যত কম FCR হবে, ততই ভালো? “FCR তো চাইলেই কমানো বা বাড়ানো যেতে পারে”।

সত্য হচ্ছে, যত কম FCR, ততো ভালো বিষয়টা এমন নাও হতে পারে। এফ-সি-আর বেশি কম হলে মুরগির স্ট্রোক সহ আরো অনেক ধকল আসতে পারে। মাংসের গুনগত মান খারাপ হতে পারে। আবার এমনও হতে পারে যে, এফ সি আর কমাতে যেয়ে উতপাদন খরচ বেড়ে গেছে। ইত্যাদি সহ আরো বেশ কিছু খারাপ দিক আছে। এজন্য সঠিক এফ সি আর গুরুত্বপূর্ন । যেটি ব্রয়লার মুরগির জাত অনুযায়ী ভিন্ন হতে পারে।

উন্নত খামার ব্যাবস্থাপনায় FCR কে এডজাস্ট করা হয়। কিভাবে এই এডজাস্ট করা হয় সেটির হিসেব জানতে আমাদের পরবর্তি পোস্টের জন্য কমেন্ট করুন।

ফার্মসএন্ডফার্মার/ ১৭ জানুয়ারি ২০২২