হিমসাগর আম চেনার সহজ উপায়

156

আমকে ফলের রাজা বলা হয়। তবে আমের প্রকার অনেক। ফজলি, ল্যাংড়া, হিমসাগর, আম্রপালি, গোপালভোগ, লক্ষ্মণভোগ, হাড়িভাঙা- এরকম আরো কিছু উন্নত জাতের আম বেশ জনপ্রিয়। এর মধ্যে ফজলি, ল্যাংড়া এবং হিমসাগর- অনেকের কাছেই আমের রাজা হিসেবে খ্যাত।

মে মাস থেকে সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত থাকে আমের মৌসুম। দেশের বাজারে গ্রীষ্মের ফল হিসেবে ইতিমধ্যে গোপালভোগ, গোবিন্দভোগ, হিমসাগর, গুটি, বোম্বাইসহ আরো কিছু জাতের আম চলে এসেছে। খুব শিগগির ল্যাংড়া, রানিপছন্দ, ফজলিসহ অন্যান্য জাতের আমও চলে আসবে।

প্রতিটি জাতের আমের চেহারা, রং, রূপ, ঘ্রাণ, স্বাদ, মিষ্টতা ইত্যাদি বৈশিষ্ট্য আলাদা। নানা জাতের আমের ভিড়ে আমের রাজা ‘হিমসাগর’কে চিনবেন কিভাবে? আম চেনার সঠিক কৌশল না জানা থাকায় অনেকেই অন্য ধরনের আমকে হিমসাগর মনে করে থাকেন। উদাহরণস্বরূপ বলা যায়, অসাধু কিছু বিক্রেতা ক্ষীরশাপাতি আমকে হিমসাগর বলে বিক্রি করেন।

এ প্রতিবেদনে হিমসাগর আম চেনার কিছু উপায় তুলে ধরা হলো।

* এ আমের ঠোঁট নেই, গড়ন বুকের দিকটা গোলাকার এবং অবতল থেকে সামান্য লম্বাটে আকার নিয়ে শীর্ষদেশ গোলাকৃতির হয়ে থাকে।

* পরিপক্ক হিমসাগর আমের রং হালকা সবুজ। পাকার পরও সবুজ থেকে যায়।

* ত্বক মসৃণ ও খোসা পাতলা। হিমসাগর খুবই উৎকৃষ্ট স্বাদের সুগন্ধযুক্ত আম।

* শাঁস নরম এবং আঁশবিহীন। শাঁস কমলা রঙের।

* গাছে পাকা আমের বোটার কাছে অবশ্যই ঘ্রাণ থাকবে।

* পরিপক্ক হিমসাগর আমের গড় ওজন ১৮০ (+) গ্রাম।

তথ্যসূত্র: আম বাজার, মিনা বাজার