৩১ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ বুধবার ১৬ অক্টোবর ২০১৯
Home / ব্যবস্থাপনা ও প্রবন্ধ / যদি ফিড মিল তৈরী করতে চান ?

যদি ফিড মিল তৈরী করতে চান ?

feedmill

আমরা অনেকে ফিড মিল তৈরীর কথা ভাবি, কিন্তু যথাযথ সিধান্ত গ্রহন করতে না পারাই কালক্ষেপন হয়। আমরা যারা ফিড মিল করার স্বপ্ন দেখি তাদের কিছু প্রাথমিক ধারনা নিয়ে আলোচনা করা হলঃ

 

১। বিনিয়োগ:
ফিড মিলের কথা চিন্তা করা মানেই বিনিয়োগের শুরু অথ্যাৎ নগদ অর্থ। প্রথমেই ফিড মিলের ধরন অনুযায়ী জমির দরকার। তারপর স্থাপনা নির্মান, মেশিনপত্র ক্রয়, জনবল নিয়োগ, অফিস ব্যবস্থাপনা ইত্যাদি।
২। জমি নির্বাচন:
ফিড মিলের জন্য পূর্ব পরিকল্পনা প্রনয়ন ও সম্প্রসারন নীতি গ্রহন করে জমি বরাদ্দ রাখতে হবে। কারন সেখানে তৈরি হবে অফিস, বাসস্থান, গুদামঘর, গাড়ী রাখার স্থানসহ বিভিন্ন অবকাঠামো।একটি আদর্শ ফিড মিলের জন্য ৪ থেকে ৫ একর জমি হলে ভাল হয়, তবে ২ থেকে ৩ একরের ফিড মিল তৈরী করা যায়।
৩। ফিডের প্রকারভেদ:
(ক) টি এম আর (টোটাল মিক্সড রেশন) ফিড-কেটল ফিড।
(খ) এক্সটুডেড ফিডঃ ফ্লোটিং (ভাসমান ) ফিস ফিড, পেট ফুড, শ্রিম্প ফিড ইত্যাদি।
(গ) পিলেট ফিড, পোল্ট্রি ফিড, সিনকিং (ডুবন্ত) ফিস ফিড, শ্রিম্প ফিড, কেটল সাপলিমেন্ট ফিড ইত্যাদি।
(ঘ) কোর্স ফিডঃ লেয়ার ফিড, কেটল ফিড ইত্যাদি।
প্রথমেই বেছে নিতে হবে কি কি ফিড আপনি তৈরি করবেন। অনেকেই দু/একটি দিয়ে শুরু করে এবং ফিডের ভাল মার্কেট তৈরী হলে আলাদা লাইনে প্রত্যেকটি তৈরী করে। আপনি চাইলে একসাথে ডুবন্ত ও ভাসমান ফিড, পোল্ট্রি পিলেট ও কোর্স ফিড তৈরীর প্রযুক্তি নিতে পারেন। এছাড়া একসাথে পোল্ট্রি ও মাছের ফিড তৈরী করতে পারেন এক্ষেত্রে বিভিন্ন কাঁচামালগুলো একটির সাথে অন্যটির সংস্পর্শের সম্ভবনা থাকে।
৪। ফিড মিলের উৎপাদন ক্ষমতা:                                                                                                              উৎপাদন ক্ষমতার বিষয়টি আপনার ব্যাক্তিগত পরিকল্পনা। কারন মার্কেট তৈরীর আগে আপনাকে ফিডের বাজার যাচাই করে উৎপাদন বিষয়টির উপর সঠিক সিধান্ত নিতে পারলে ঝুকি কম থাকবে। আমাদের দেশে গত ৫-১০ বছরে ফিডের চাহিদা কেমন ছিল তার উপর আপনার ধারনা থাকতে হবে এবং ভবিষ্যতে কি পরিমান ফিডের চাহিদা বাড়তে পারে তা আগেই বিশ্লেষন করতে হবে। তা নাহলে চাহিদার সাথে আপনি যোগানের উপস্থিতি রাখতে পারবেন না। ফিড মিলের উৎপাদন ক্ষমতা ঘন্টায় হিসাব করা হয়। আপনি ঘন্টায় ৩-৪ মেঃ টন থেকে শুরু করে ৩০ মেঃ টন বা এরও বেশি উৎপাদন ক্ষমতার ফিডমিল শুরু করতে পারেন।
৫। ঝুঁকি:
প্রত্যেক বিনিয়োগে ঝুঁকি আছে বা থাকবে এটা স্বভাবিক । তবে ফিডের মান ভাল হলে, শক্তিশালী বাজার তৈরী করতে পারলে, খামারী ও ডিলারদের সাথে সু-সম্পর্ক এবং পারস্পারিক সহযোগিতা থাকলে বিনিয়োগ লাভজনক হবে।
৬। যন্ত্রপাতি ও সাজ-সরঞ্জাম:
পোল্ট্রি শিল্পের আধুনিকায়নে তথা প্রযুক্তিগত ও বিজ্ঞানসম্মত উন্নয়নে সবচেয়ে প্রয়োজনীয় ও অন্যতম উপাদান হচ্ছে যন্ত্রপাতি ও যন্ত্রাংশ। আধুনিক যন্ত্রপাতির সমন্বয় ঘটাতে না পারলে পোল্ট্রি ব্যবসাকে শিল্পে উত্তরন করা সম্ভব নয় । পোল্ট্রি যন্ত্রপাতি এবং সাজ-সরঞ্জাম বেশির ভাগই বিদেশ থেকে আমদানী করতে হয়। কিছু যন্ত্রপাতি বিদেশ থেকে এনে দেশে বাজারজাত করা হয়। প্রশ্ন হচ্ছে উদ্দ্যেক্তাগন এসব যন্ত্রপাতি কোথা থেকে সংগ্রহ করবেন। যারা নতুন ফিড মিল করবেন বলে ভাবছেন এবং যারা ইতিমধ্যেই করেছেন কিন্তু এটাকে আরও আধুনিক করতে চান তাদের জন্য আমরা কিছু নির্বাচিত পোল্ট্রি যন্ত্রপাতি আমদানীকারক ও প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানের নাম ঠিকানা তুলে ধরেছি।
নীতি কথা:
সবকিছু বিবেচনা করে বাজার সম্পর্কে গবেষনা করুন, বিশেষজ্ঞদের সাথে পরামর্শ করে দীর্ঘ নীতি গ্রহন করুন, ফিডের মানের প্রতি বেশ যত্নবান থাকুন। আরো বেশি জানতে চাইলে www.farmsandfarmer24.com –ভিজিট করুন।
যন্ত্রপাতি ও সাজ-সরঞ্জাম প্রস্তুত এবং আমদানী কারক কিছু প্রতিষ্ঠান এর সাথে যোগাযোগের ঠিকানা দেওয়া হল।

  1. Protimax International, Cell: 01712511672, E-mail: [email protected]
  2. Technology &Agro Trading Co (TATCO), Cell: 01819214992, E-mail: [email protected]
  3. Prestige Feed and Ingredient, Cell: 01711-616282, E-mail: [email protected]

আরও পড়ুন...

বিষাক্ত মাশরুম

সন্ধান মিলল প্রাণঘাতী বিষাক্ত মাশরুমের!

অস্ট্রেলিয়ায় বিশ্বের অন্যতম বিষাক্ত ছত্রাকের সন্ধান মিলেছে। বৃহস্পতিবার দেশটির জেমস কুক ইউনিভার্সিটির একদল গবেষক এ …